যাত্রী পার্টনার অ্যাপ: রেন্ট-এ-কার ব্যবসা খাতে নতুন সংযোজন !

রেন্ট-এ-কার সার্ভিস বা ব্যবসা বাংলাদেশে বহুল প্রচলিত এবং পরিচিত একটি সেবা খাত। সাধারণত ব্যক্তিগত পর্যায়ে ও উদ্যোগে এই ব্যবসা পরিচালিত হয়। শহরের ব্যস্ত এবং বাণিজ্যিক এলাকাকে কেন্দ্র করে এধরণের সেবা দানকারী প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠে, যেখান থেকে গ্রাহকরা সশরীরে উপস্থিত হয়ে দরদাম করে পছন্দ অনুযায়ী গাড়ি ভাড়া নিয়ে থাকে। গাড়ি ভাড়া দেয়া থেকে শুরু করে গন্তব্য অনুযায়ী দুই পক্ষের মধ্যে ভাড়া নির্ধারণ এবং ব্যবসা পরিচালনার পুরো প্রক্রিয়াটিই প্রচলিত নিয়মে কোনো রকম প্রযুক্তির ছোঁয়া ছাড়া পরিচালিত হয়।

বহুল প্রচলিত এই পরিবহণ খাতকে আরো প্রসারিত ও সেবার মানকে প্রশস্ত করতে এবং রেন্ট-এ-কার ব্যবসায়ীদের ব্যবসা পরিচালনার কাজকে সহজতর ও হাতের মুঠোয় নিয়ে আসার লক্ষ্যে; যাত্রী সার্ভিসেস লিমিটেড উদ্ভাবন করে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ভিত্তিক রেন্ট-এ-কার ব্যবসা পরিচালনা প্লাটফর্ম ‘যাত্রী পার্টনার অ্যাপ’ । যার মাধ্যমে একজন রেন্ট-এ-কার ব্যবসায়ী অধিক সংখ্যক গ্রাহকের কাছে পৌঁছানোর পাশাপাশি তাঁর ব্যসায়ের পরিধি বৃদ্ধি করতে পারবে এবং খুব সহজেই তাঁর ব্যবসা পরিচালনা করতে পারবে।

    যাত্রী পার্টনার অ্যাপ:
  • যাত্রী পার্টনার অ্যাপ এমন একটি প্লাটফর্ম যেখান থেকে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান তাদের রেন্ট-এ-কার ব্যবসা পরিচালনা করতে পারবে। যেহেতু যাত্রী পার্টনার অ্যাপে রেন্ট-এ-কার ব্যবসায়ে ক্ষেত্রে খুব অল্প হারে কমিশন দিতে হয়, সেক্ষেত্রে লাভবান হবার সুযোগও বেশি থাকে।
    যেভাবে যাত্রী পার্টনার অ্যাপে যুক্ত হতে হবে:
  • গুগল প্লে-স্টোরে রয়েছে যাত্রী পার্টনার অ্যাপ। সেখান থেকে অ্যাপ ইনস্টল করার পর একজন ব্যক্তিকে ফোন নাম্বার ও প্রয়োজনীয় প্রাথমিক তথ্য দিয়ে সাইন আপ করতে হবে। পরবর্তী ধাপে সাইন আপ করা ব্যক্তিকে প্রদান করতে হবে তার গাড়ি সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য ও গাড়ির ছবি। সর্বশেষ ধাপে যাত্রী সার্ভিসেস লিমিটেড নিয়োজিত ব্যক্তি কর্তৃক ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে একজন ব্যক্তি পার্টনার অ্যাপে যাত্রীর পার্টনার হিসেবে রেজিস্টার্ড হবে।
    বিডিং কী এবং যেভাবে বিডিংয়ে অংশ নিতে হয়:
  • যাত্রী পার্টনার অ্যাপে কোনো গন্তব্যের জন্য পূর্ব-নির্ধারিত ভাড়া নেই। ইউজার কোনো গন্তব্যের জন্য রিকোয়েস্ট প্রদান করার পর, পার্টনাররা সেই রিকোয়েস্টের ভিত্তিতে গন্তব্য, দূরত্ব, ট্রিপের সময়, ট্রিপের ধরণ, রাউন্ড ট্রিপ কি না- সহ সমস্ত কিছু যাচাই করে ভাড়া ডিমান্ড করবে। সাধারণত একাধিক কিংবা তার চেয়ে বেশি পার্টনার ভাড়া ডিমান্ড করে থাকে। ভাড়া নির্ধারণ এবং ট্রিপ নিশ্চিত করার এই পদ্ধতিকেই মূলত বিডিং বলা হয়। যার প্রদানকৃত ভাড়া ইউজারের কাছে ন্যায্য মনে হবে, গাড়ির বিবরণ সহ পার্টনারের বিস্তারিত তথ্য দেখে তিনি সেই পার্টনারকে সিলেক্ট করবেন।

Abdul Nakib

20th January, 2022

    যেভাবে পার্টনার অ্যাপের মাধ্যমে গাড়ি ভাড়া দেয়া যায়:
  • কজন ইউজার গাড়ির জন্য রিকোয়েস্ট প্রদান করার পর রেজিস্টার্ড পার্টনারদের কাছে নোটিফিকেশন পৌঁছে যায়। সেটার ভিত্তিতে পার্টনাররা বিডিংয়ে অংশ নেয়। মূলত বিডিংয়ে অংশ নেয়ার মাধ্যমেই গাড়ি ভাড়া দেয়ার প্রক্রিয়ার প্রথম ও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ধাপ সম্পন্ন হয়।
    যাদের জন্য যাত্রী পার্টনার অ্যাপ:
  • যারা রেন্ট-এ-কার ব্যবসায়ের সাথে জড়িত, কিংবা ব্যক্তিগত গাড়ি থাকা সাপেক্ষে রেন্ট-এ-কার ব্যবসা শুরু করতে চান, তাদের জন্যই যাত্রী পার্টনার অ্যাপ। এই অ্যাপের মাধ্যমে একজন ব্যক্তি সর্বোচ্চ সংখ্যক পেসেঞ্জারের কাছে পৌঁছানো কিংবা গাড়ি ভাড়া দেয়া থেকে শুরু করে পুরো ব্যবসা পরিচালনা করতে পারবে।
    বিডিংয়ে অংশ নেয়ার শর্ত:
  • একজন রেজিস্টার্ড পার্টনার রিকোয়েস্টের সাপেক্ষে বিডিংয়ে অংশ নেয়ার আগে, তাকে নিশ্চিত হতে হবে; তার পার্টনার অ্যাকাউন্টে ডিমান্ড করা ভাড়ার বিপরীতে সার্ভিস চার্জ পরিশোধ করার মতো পর্যাপ্ত ব্যালেন্স রয়েছে কি না।
    বিডিংয়ে অংশ নেয়ার ক্ষেত্রে যে বিষয়টি সর্বাধিক খেয়াল রাখতে হবে:
  • যেহেতু একাধিক বা তার চেয়েও বেশি পার্টনার ভাড়া ডিমান্ড করে থাকে, এবং ইউজারের সুযোগ থাকে পার্টনার সিলেক্ট করে নেয়ার, সেক্ষেত্রে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে ডিমান্ড করা ভাড়া লোকেশন ও দূরত্ব অনুযায়ী ন্যায্য হচ্ছে কি না। একজন পার্টনার যখন ন্যায্য মূল্যে বিড করবে, তার বিডটি এক্সেপ্ট হবার সম্ভাবনা অনেক বেশি বেড়ে যায়।
    বিডিংয়ে গাড়ি এক্সেপ্ট হলে পরবর্তী করণীয়:
  • বিডিংয়ের মাধ্যমে ইউজার একজন পার্টনারকে সিলেক্ট করার পর পার্টনারের কাছে ইউজারের বিস্তারিত তথ্য সহ কন্টাক্ট নাম্বার পৌঁছে যাবে। ট্রিপ শুরু হবার আগ পর্যন্ত যে কোনো প্রয়োজনে ইউজার এবং পার্টনার যোগাযোগ করতে পারবে।
    যে সকল বিষয়ে পার্টনারদের সতর্ক থাকা প্রয়োজন:
  • ১) দূরত্ব অনুযায়ী ন্যায্য ভাড়া ডিমান্ড করে বিডিংয়ে অংশ নিতে হবে।
  • ২) ভাড়া ডিমান্ডের ক্ষেত্রে, যাবতীয় খরচ ( ফুয়েল খরচ, গাড়ির বডি ভাড়া, টোল ) হিসেব করে ভাড়া ডিমান্ড করতে হবে।
  • ৩) মনে রাখতে হবে, বিডিংয়ে যে ভাড়া ডিমান্ড করা হবে, পরবর্তীতে সেটা ব্যতীত কোনো চার্জ বা ফি ইউজারের কাছে ডিমান্ড করা যাবেনা।
  • ৪) ইউজারের সাথে কোনো ধরণের অসদাচরণ বা অনাকাঙ্ক্ষিত আচরণ করা থেকে বিরত থাকতে হবে।